ব্রেকিং

x

তীব্র তাপপ্রবাহে হিটস্ট্রোক এড়াবেন যেভাবে

রবিবার, ০৭ এপ্রিল ২০২৪ | ৮:১৪ অপরাহ্ণ | 114 বার

তীব্র তাপপ্রবাহে হিটস্ট্রোক এড়াবেন যেভাবে
সংগৃহীত ছবি

গ্রীষ্মের দাবদাহে হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হন অনেকেই। হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি এড়াতে কিছু টিপস মেনে চলতে হবে। আসলে অনেকেরই হিট স্ট্রোক সম্পর্কে ধারণা থাকে না।

জানুন হিট স্ট্রোক কী, এর লক্ষণগুলি কী কী এবং কোন ঘরোয়া প্রতিকারের মাধ্যমে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব।



হিটস্ট্রোক কী?

হিট স্ট্রোককে সাধারণ ভাষায় সানস্ট্রোক বলা হয়। শরীর তার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে হিট স্ট্রোক হয়। হিট স্ট্রোকের ক্ষেত্রে, শরীরের তাপমাত্রা দ্রুত বৃদ্ধি পায় এবং কমাতে অক্ষম হয়। যখন কেউ হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হয়, তখন শরীরের ঘামের প্রক্রিয়াটিও ব্যর্থ হয় এবং ব্যক্তির ঘাম হয় না। হিট স্ট্রোক হলে, ১০ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে শরীরের তাপমাত্রা ১০৬° ফারেনহাইট বা তার বেশি পৌঁছাতে পারে। যদি সময়মতো চিকিৎসা না করা হয়, তাহলে সেই ব্যক্তির মৃত্যু বা অরগ্যান ফেলিওরের কারণ হতে পারে।

হিটস্ট্রোকের লক্ষণ

হিটস্ট্রোকের লক্ষণ বোঝা খুব জরুরি। কারণ সময়মতো চিকিৎসা করা যেতে পারে সেক্ষেত্রে।

* মাথাব্যথা

* ডিমেনশিয়া

* মাত্রাতিরিক্ত জ্বর

* মানসিক অবনতি

* বমি ভাব এবং বমি

* ত্বক লাল হয়ে যাওয়া

* বর্ধিত হৃদস্পন্দন

* ত্বক শুকিয়ে যাওয়া

হিটস্ট্রোকের কারণ

খুব গরম জায়গায় বা সরাসরি সূর্যের আলোর নীচে বেশিক্ষণ থাকলে হিটস্ট্রোক হতে পারে। কেউ হঠাৎ ঠান্ডা আবহাওয়া থেকে গরম জায়গায় চলে গেলে হিট স্ট্রোকের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। গরম আবহাওয়ায় অতিরিক্ত ব্যায়ামও হিট স্ট্রোকের প্রধান কারণ। পর্যাপ্ত পানি পান না করার কারণে গরমে অতিরিক্ত ঘাম হয়। কেউ যদি খুব বেশি অ্যালকোহল পান করে, তবে শরীর তার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। এটিও হিট স্ট্রোকের কারণ হতে পারে। আপনি যদি গ্রীষ্মকালে এমন পোশাক পরেন যা ঘাম হতে দেয় না এবং বাতাস প্রবেশ না করতে পারেন, তাহলে তা হিট স্ট্রোকের ঝুঁকিও বাড়িয়ে দিতে পারে।

হিটস্ট্রোক থেকে মুক্তি পাওয়ার প্রতিকার

কেউ যদি হিট স্ট্রোকে আক্রান্ত হয় এবং সময়মতো চিকিৎসা না করা হয়, তাহলে কিছু গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে। যার মধ্যে অরগ্যান ফেলিওর, মৃত্যু, ব্রেন ডেড রয়েছে। যদি কেউ হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হন, তাহলে কোন প্রাথমিক পদ্ধতি নেবেন, জানুন।

* সানস্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তিকে রোদে রাখবেন না।

* কাপড়ের পুরু স্তরগুলো সরান এবং বাতাস প্রবেশ করতে দিন।

* শরীর ঠাণ্ডা করার জন্য কুলার বা ফ্যানের নিচে বসুন।

* ঠাণ্ডা পানি দিয়ে গোসল করুন।

* একটি কাপড় ভিজিয়ে শরীর মুছুন

* মাথায় ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভেজা বরফের প্যাক বা কাপড় রাখুন।

* মাথা, ঘাড়, বগল ও কোমরে ঠাণ্ডা পানিে ভিজিয়ে রাখা তোয়ালে রাখুন।

* এই প্রাথমিক ব্যবস্থা গ্রহণের পরেও যদি শরীরের তাপমাত্রা না কমে, তবে অবিলম্বে একজন ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

নামাজের সময়সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৪ অপরাহ্ণ
  • ৪:৪১ অপরাহ্ণ
  • ৬:৫৩ অপরাহ্ণ
  • ৮:২০ অপরাহ্ণ
  • ৫:১২ পূর্বাহ্ণ

Development by: webnewsdesign.com