ব্রেকিং

x


ঠাকুরগাঁয়ে ৩ মহিলাকে কুপিয়ে জখম করল চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল

বুধবার, ০৪ মার্চ ২০২০ | ৫:৪১ অপরাহ্ণ | 222 বার

ঠাকুরগাঁয়ে ৩ মহিলাকে কুপিয়ে জখম করল চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল

ঠাকুরগাঁওয়ে জমি নিয়ে বিরোধের মো: মনসুর আলীর স্ত্রী আনসুরা (৪৫),তার দুই ছেলের স্ত্রী (২৪),জামাই দেলোয়ার (৩২), সহ মোট চার জনের উপর সন্ত্রাসী হামলা ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় মো; মনসুর আলীর স্ত্রী আনসুরা (৪৫),তার দুই ছেলের স্ত্রী (২৪),জামাই দেলোয়ার (৩২), সহ মোট চারজন জনগুরুতর আহত হয়েছেন। আহতরা বর্তমানে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে,হামলাকারী আসাদুল চেয়ারম্যানের বাড়িতে কাজ করে,এবং চেয়ারম্যানের সাহসে মনসুর আলী এর পরিবারের উপর হামলা চালায়।



গত ২ মার্চ রাত আটটায় মনসুর আলীর স্ত্রী আনসুরা (৪৫),তার দুই ছেলের স্ত্রী (২৪),জামাই দেলোয়ার (৩২), সহ মোট চার জনের উপর রাতের অন্ধকারে বিদ্যুতের লাইট বন্ধ করে সন্ত্রাসী হামলা ও বেধড়ক মারধর করে চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল ও বাসেদ।

এমন অবস্থায় প্রাণ বাঁচাতে কোন উপায় না পেয়ে সরকারি জরুরী সার্ভিস ৯৯৯ এ ফোন করে সাহায্য চায় মনসুর এর পরিবার।

এরপর ঠাকুরগাঁও সদর থানা থেকে পুলিশ গিয়ে আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। এমন অবস্থাতেও মনসুরের পরিবারকে সুষ্ঠু বিচার দিচ্ছেনা স্থানীয় চেয়ারম্যান বলে দাবি করেছে মনসুর এর পরিবার।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার এসআই মুকুল জানায় ৯৯৯ থেকে আমরা ফোন পাওয়ার পরেই ঘটনাস্থলে যাই । ঘটনাস্থল থেকে মনসুর এর পরিবারের সদস্যদের গুরুতর আহত অবস্থায় পাই এবং সাথে সাথে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করি।

এই ঘটনায় পুলিশ কি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমি আহতদের পরিবারকে থানায় মামলা করার কথা জানিয়েছি। আহতের পরিবার মামলা করলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

ঘটনাটির বিস্তারিত জানতে সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল কয়েক দফায় মনসুরের পরিবারের মহিলাদের নির্যাতনের হুমকি দেয় ।এবং এক পর্যায়ে মনসুরের ছেলের স্ত্রী শারমিনের ও মনসুর এর স্ত্রী আনসুরা এর গায়ে হাত ও কাপড় ছিড়ে দিয়ে হস্তাহস্তি করে।

ঘটনাটি স্থানীয় চেয়ারম্যান মোঃ বনি আমীনকে অবগত করলেও হামলাকারী আসাদুল চেয়ারম্যান মোঃ বনি আমীন এর বাড়িতে কর্মরত হওয়ায় চেয়ারম্যান নেননি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা।

এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান মোঃ বনি আমীন এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা কালে একাধিক বার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এর বিষয়ে গুরুতর আহত আনসুরার স্বামী মোহাম্মদ মনসুর আলী জানায়, স্থানীয় চেয়ারম্যান মোঃ বনি আমীন এর বাড়িতে কর্মরত মোঃ আসাদুল এর কাছ থেকে আমার স্ত্রী তার পরিতক্ত বাড়ির চারটি সিমেন্টের পিলার ক্রয় করে। এক পর্যায়ে আমার স্ত্রী এবং আমার ছেলের বউ পিলারগুলো আনতে গেলে দুটি পিলার ভাঙ্গা পায়। এমন অবস্থায় চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল আমার ছেলের স্ত্রী শারমিনের গায়ে হাত দেয় এবং তার গায়ের কাপড় ছিড়ে দেয় । এবং ঘটনার দিন গত ২ মার্চ রাত আটটায় মনসুর আলীর স্ত্রী আনসুরা (৪৫),তার দুই ছেলের স্ত্রী (২৪),জামাই দেলোয়ার (৩২), সহ মোট চার জনের উপর রাতের অন্ধকারে বিদ্যুতের লাইট বন্ধ করে সন্ত্রাসী হামলা ও বেধড়ক মারধর করে চেয়ারম্যানের বাড়িতে কর্মরত আসাদুল ও বাসেদ।

এ ঘটনায় আহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের এর প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Development by: webnewsdesign.com