ব্রেকিং

x


জেলায় জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় জরিমানা

বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ ২০২০ | ৮:১৩ পূর্বাহ্ণ | 118 বার

জেলায় জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় জরিমানা
ছবি- অনলাইন

কভিড-১৯ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যেসব প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইন মানছেন না তাদের আর্থিক দণ্ড দিচ্ছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পটুয়াখালী সদর রোড এলাকার উজ্জল জুয়েলার্স এর মালিক সজল চন্দ্র কর্মকার ভারত থেকে ফিরে হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় তার দোকানে অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লতিফা জান্নাতী। বেনাপোল চেকপোস্ট হয়ে গত ৭ মার্চ দেশে প্রবেশ করে পটুয়াখালীতে আসেন সজল।

বাসায় না থেকে দোকানে অবস্থান করায় তাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাকে মোট ১৪ দিন বাসায় থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক।



এদিকে নাটোরের দুই কোচিং সেন্টারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার বিকেলে শহরের বলারিপাড়ায় অবস্থিত ব্রাইট ফিউচার ও সামিরুল কোচিং সেন্টারে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট আবু হাসান।

নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলায় ‘হোম কোয়ারেন্টিনে’ থাকার সরকারি নির্দেশনা অমান্য করায় তিন প্রবাসীকে অর্থদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার বিকেলে উপজেলার শিবু মার্কেট এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সদর উপজেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক দুইজনকে জরিমানা করেন ও বন্দরে একজনকে আলাদাভাবে অর্থদণ্ড করা হয়।

নাহিদা বারিক জানান, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিদেশফেরত ব্যক্তিদের ১৪দিন ‘হোম কোয়ারেন্টিনে’ থাকার সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। তবে এই নির্দেশনা অমান্য করে একজন সৌদি ফেরত ও আরেকজন কুয়েত ফেরত দুই ব্যক্তি শিবুমার্কেট এলাকায় ঘোরাঘুরি করছিলেন। বিষয়টি স্থানীয়রা দেখার পর উপজেলা প্রশাসনকে জানান। খবর পেয়ে বিকেল ৫টায় শিবুমার্কেট এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দুইজনকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। সৌদি ফেরত ব্যক্তি আগামী ২২ মার্চ ও কুয়েত ফেরত ব্যক্তি ২৫ মার্চের আগে ঘর থেকে বের হবেন না বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় আকরাম হোসেন (৫০) নামে সৌদি ফেরত একজনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তার বাড়ি ভৈরবের শম্ভুপুর এলাকায়। আকরাম হোসেন গত ১১ মার্চ সৌদি আরব থেকে দেশে আসেন। দেশে আসার পর তাকে নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। কিন্তু হোম কোয়ারেন্টাইন না মানার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। বাড়ির পাশে রেললাইনের ধারে তাকে হাটাচলা করতে দেখে স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালত তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

বুধবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় হোম কোয়ারেন্টাইন মানায় প্রবাস ফেরত একজনকে জরিমানা করা হয়েছে। আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা আক্তার রেইনা ছতুরা শরীফ গ্রামে গিয়ে ইতালি ফেরত ওই ব্যক্তিকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ সময় ওই গ্রামে থাকা আরও চারজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার যথাযথ নির্দেশনা দিয়ে মাস্ক, সেনিটাইজার বিতরণ করা হয়। ইউএনও জানান, এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

হোম কোয়ারেন্টিনে না থাকায় ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় আবুল খায়ের নামের এক যুবককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ওই যুব সাত দিন আগে দুবাই থেকে দেশে ফেরেন। নিয়ম অনুযায়ী তার ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা।
জানা যায়, এই নির্দেশনা উপেক্ষা করে তিনি বুধবার লক্ষিগঞ্জ বাজারের এক সেলুনে বসে আড্ডা দিচ্ছিলেন। বাজারের সচেতন কয়েকজন ব্যবসায়ী বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানান। ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে গিয়ে তাকে বিশ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

সাতক্ষীরায় করোনোভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে হোম কোয়ারেন্টাইনের শর্ত না মেনে প্রকাশ্যে চলাফেরা করায় মো. কামরুজ্জামান নামে এক যুবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ১৫ মার্চ ওই যুবক দেশে ফিরেছিলেন।

Development by: webnewsdesign.com