ব্রেকিং

x

অজানাকে জানতে হবে বিপ্লবী স্বাধীনতা সংগ্রামী দুঃসাহসীক এক মানবী প্রীতিলতা

শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | ৪:০৮ অপরাহ্ণ | 1503 বার

অজানাকে জানতে হবে  বিপ্লবী স্বাধীনতা সংগ্রামী দুঃসাহসীক এক মানবী প্রীতিলতা

প্রীতিলতা ১৯১১ সালে মধ্য বিত্ত পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। পিতা জগবন্ধু ছিলেন চট্টগ্রাম পৌর সভার হেড ক্লার্ক। প্রীতিলতা চট্টগ্রামের ডাঃ খাস্তগীর বিদ্যালয় থেকে ১৯২৭ সালে প্রথম বিভাগে ম্যাট্রিক পাশ করেন। পরে ইডেন কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ঢাকা বোর্ডে প্রথম স্থান অধীকার করেন। দুই বছর পর প্রীতিলতা কলকাতার বেথুন কলেজ থেকে দর্শন শাস্ত্রে ডিষ্টিংশন সহ গ্রাজুয়েশন করেন। এবং পরে তিনি চট্টগ্রাম নন্দন কানন অপর্না চরন নামক একটি ইংরেজী মাধ্যমিক স্কুলে প্রধান শিক্ষিকা হিসাবে যোগদান করেন। ১৯৩০ সালে সংগ্রাম রত বিপ্লবী দলের ভারতের স্বধীনতা অর্জনে সশস্ত্র সংগ্রামের চিন্তা চেতনার মধ্যে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের গোপন দলিল পাঠ থেকে প্রীতিলতা ওয়াদ্দোদার বিপ্লবে উদ্ধুদ্ধ হন। তিনি ছিলেন বিপ্লবী স্বধীনতা সংগ্রামী। তিনি মাষ্টার দ্যা সূর্য্যসেনের ঘনিষ্ট সহযোদ্ধা ছিলেন। প্রীতিলতার এক ভাই মাষ্টার দাকে তাঁর বিপ্লবী চেতনা সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি সুর্যসেনের নেতৃত্বধীন বিপ্লবী দলের প্রথম মহিলা সদস্য। তিনি টেলিফোন ও টেলিগ্রাফ অফিস ধ্বংস সহ রিজার্ভ পুলিশ লাইন দখল অভিযানে যুক্ত ছিলেন। ১৯৩২সালের ১৩ই জুন দলঘাট সংঘর্ষে কয়েক জন বিপ্লবী প্রান হারায়। মাষ্টারদা ও প্রীতিলতা পালাতে সক্ষম হন। ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রীতিলতা পাহাড় তলীতে ইউরোপীয়ান ক্লাব আক্রমন করে পুরুষ বেশী প্রীতিলতা সামরিক কায়দায় তাঁর বাহিনীকে ফিরে যাবার নির্দেশ দেন। এ সময় তিনি গুলি বিদ্ধ হলে তাৎক্ষনিক পটাশিয়াম সায়ানাইট খেয়ে মৃত্যু বরন করেন। ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে পরিচালিত সশস্ত্র সংগামে প্রীতিলতাকে প্রথম  আত্নত্যাগী নারী হিসেবে চিহিৃত করা হয় ।



নামাজের সময়সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ
  • ৪:৩২ অপরাহ্ণ
  • ৬:৩৭ অপরাহ্ণ
  • ৮:০০ অপরাহ্ণ
  • ৫:১৬ পূর্বাহ্ণ

Development by: webnewsdesign.com